default-image

১৯৭১ সালের ২ ডিসেম্বর রাত আনুমানিক আটটা। সিলেটের তেলিয়াপাড়া এলাকায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও তাদের সহযোগী রাজাকাররা মুক্তিবাহিনীর ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়। সে সময় সুবেদার ওসমান গনির নেতৃত্বে হাবিলদার আবদুস সালাম মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে তাদের ওপর পাল্টা আক্রমণ চালান। প্রায় দুই ঘণ্টার এই সম্মুখযুদ্ধের একপর্যায়ে পাকিস্তানি বাহিনীর ছোড়া শেলের আঘাতে হাবিলদার আবদুস সালামের তলপেট ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়। আহত আবদুস সালামকে মুক্তিযোদ্ধারা উদ্ধার করতে সক্ষম হন। প্রাথমিক চিকিত্সা দিয়ে পরে তাঁকে কলকাতায় পাঠানো হয়। ওই সম্মুখযুদ্ধে রাজাকারসহ ৩০ থেকে ৩৫ জন পাকিস্তানি সেনা মারা যায়।

আবদুস সালাম প্রথম জীবনে পুলিশ বিভাগে চাকরি করতেন। পরে ইপিআরে যোগ দেন। ১৯৭১ সালে কর্মরত ছিলেন দিনাজপুর ইপিআর হেডকোয়ার্টারের অধীনে। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি সক্রিয়ভাবে যুদ্ধে অংশ নেন। বিভিন্ন জায়গায় পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন। মুক্তিযুদ্ধের মাঝামাঝি সময় তিনি সিলেট অঞ্চলে চলে আসেন। তারপর সিলেটের তেলিয়াপাড়াসহ বিভিন্ন স্থানে যুদ্ধ করেন।

বিজ্ঞাপন